1. admin@somoyerahoban.com : somoyerahoban :
শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৯:০৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
আত্রাই পল্লী সমাজের আলোচনা সভা ও মানববন্ধন শ্রীবরদীতে ৭ই মার্চ ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা  শেরপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ফেরদৌস জাহানারার নামে ছাত্রী হোস্টেলের নামফলক উন্মোচন। ঝিনাইগাতীর ধানশাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী হায়দার আলীর মতবিনিময় সভা  কেশবপুরে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন উপলক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত জামালপুরের সেই বিতর্কিত ডিসি শাস্তি পেলেন আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পেলেন নালিতাবাড়ী উপজেলার বাদশা ও গোপাল নলকুড়া ইউনিয়নে ভিজিডি কার্ডের চাল বিতরন ঝিনাইগাতীর ধানশাইল ইউনিয়নের নৌকার মাঝি হতে চান এনামুল পুলিশ লাইন্স একাডেমি‌তে প্রধান শিক্ষক হি‌সে‌বে কালা‌মের যোগদান

কেশবপুরে পুরোনো ব্যাটারি ব্যাবসায়ী সাঈদ হত্যার রহস্য উন্মোচন, আটক- ২

মীর আজিজ হাসান (যশোর)কেশবপুর প্রতিনিধি।
  • Update Time : রবিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ৫৩ Time View

যশোরের কেশবপুর উপজেলার কন্দর্পপুর গ্রামের ভাংড়ি ব্যবসায়ী সাঈদ সরদার হত্যায় জড়িত দুই আসামিকে আটক করেছে পিবিআই।

গতকাল শনিবার (১৪ নভেম্বর) তাদের আদালতে সোপর্দ করা হলে হত্যার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবনবন্দি দেয়। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যজিস্ট্রেট গৌতম মল্লিক আসামিদের জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

আটককৃতরা হলো পাঁজিয়া গ্রামের হাফিজুর সরদারের ছেলে জুয়েল সরদার ও হাড়িয়া ঘোপ গ্রামের সাহেব আলীর ছেলে কামরুজ্জামান লিটন। তাদের কাছ থেকে ছিনতাই হওয়া নগদ টাকা ও ভ্যান উদ্ধার করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ১০ নভেম্বর সন্ধ্যার পর সাঈদ সরদার বাড়ি থেকে গিয়ে আর ফিরে আসেনি। পরদিন নুড়িতলা বাজারে যাওয়ার কাঁচা রাস্তার পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে নিহতের স্ত্রী ঝর্ণা বেগম বাদী হয়ে অপরিচিত ব্যক্তিদের আসামি করে  কেশবপুর থানায় হত্যা মামলা করেন।

মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায় যশোরের পিবিআই। মামলার তদন্তকালে শুক্রবার (১৩ নভেম্বর) হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে জুয়েল ও কামরুজ্জামানকে আটক করা হয়। এ সময় কারুজ্জামানের বাসা থেকে ছিনতাই করে নেয়া নগদ ২৮ হাজার টাকা ও জুয়েলের বাড়ি থেকে নিহত সাঈদের ব্যবহৃত ভ্যান উদ্ধার করা হয়। শনিবার (১৪ নভেম্বর) আটক দুইজনকে আদালতে সোপর্দ করা হলে তারা হত্যার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেয়।

আটক জুয়েল ও কামরুজ্জামান জবানবন্দিতে জানিয়েছে, সাঈদ সরদার ভাংড়ির ব্যবসা করত। তার কাছে সব সময় ৫০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা থাকতো। বিষয়টি তারা জানতো। তাছাড়া কামরুজ্জামানের কাছে জুয়েল ১০ হাজার টাকা পেত। আবার জুয়েল টাকার অভাবে কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে পারছিলো না। এ অবস্থায় তারা সাঈদের কাছ থেকে টাকা ছিনতাইয়ের পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ১০ নভেম্বর সন্ধ্যায় তারা ফোন করে সাঈদকে ডেকে নিয়ে আসে। এরপর তার পুরাতন ওজন পরিমাপের স্কেল কেনার কথা বলে সাতাসকাঠি থেকে নুড়িতলা বাজারের দিকে রওয়না হয়। পথিমধ্যে আবু সাঈদ ভ্যানে তাদের রেখে প্রস্রাব করতে রাস্তার পাশে বসে। এ সময় আসামিরা নেমে হাতুড়ি দিয়ে মাথা ও মুখে আঘাত করে সাঈদকে হত্যা করে। এরপর তার কাছে থাকা টাকা ও ভ্যান নিয়ে তারা চলে যায়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
কপিরাইট © 2020 somoyerahoban.com একটি স্বপ্ন মিডিয়া সেন্টার প্রতিষ্ঠান।