1. admin@somoyerahoban.com : somoyerahoban :
রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:১১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
বিনামূল্যে সকল নাগরিকের করোনা টিকা দিতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ল ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত কেশবপুরে মাদ্রাসা প্রধানের বিরুদ্ধে ট্রাষ্ট সম্পত্তি ও প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় অনিয়মের অভিযোগ কেশবপুরে এবার একদিনেই সম্পন্ন করা হবে মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের জন্মবার্ষিকী ‘মধুমেলা’ শেরপুরে মনোনয়ন বঞ্চিত প্রার্থীর সমর্থকদের বিক্ষোভ, আটক ২ কেশবপুরে ওজনে কম দেওয়ায় ভোক্তা অধিকার আইনে ভ্রাম্যমান আদালতে ২ মিষ্টান্ন ব্যবসায়ীকে জরিমানা কেশবপুরে গভীর রাতে ঘুমন্ত মা ও ছেলের উপর সন্ত্রাসী হামলা, বসতবাড়ী ভাংচুর, থানায় অভিযোগ নালিতাবাড়ীতে ইমরান সালেহ প্রিন্স-জনগণ যদি ভোট দিতে পারে,তাহলে বিএনপির প্রার্থী বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন। ঝিনাইগাতীতে দুই ট্রাকের মুখো-মুখি সংঘর্ষে আহত ২ ঝিনাইগাতীতে ৫০ বছর পর বধ্যভুমি সংরক্ষণের উদ্যোগ নিলেন – জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব

মামলার জালে এক যুগ ঝুলে নকলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন।

মাসুদ হাসান বাদল
  • Update Time : বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ৫৩ Time View

দীর্ঘ ১ যুগের বেশি সময় ধরে মামলায় ঝুলে আছে শেরপুর জেলার নকলা উপজেলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের নির্মান কাজ। এতে সরকারী এই সেবা থেকে বঞ্চিত ওই উপজেলার মানুষ। আগুন লাগলে সেবা নিতে হয় শেরপুর সদর অথবা নালিতাবড়ী উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের। ঘটনা ঘটলে এত দূর থেকে সেবা দিতে গেলে ক্ষতির পরিমান বেড়ে যায়। কাজের জটিলতা না কাটলেও সম্পাদিত কাজের চেয়ে অধিক পরিমান বিল পরিশোধ করা হয়েছে বলে অভিযোগ আছে। কাজের অগ্রগতি ফইলে দেখা গেছে শতকরা ৬০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে কিন্ত ঠিকাদারকে বিল দেওয়া হয়েছে শতকরা ৭৫.৬০ ভাগ।

জানা গেছে, সকল প্রক্রিয়া শেষে ২০০৬ সালের প্রথম দিকে ৩৩ শতক অর্পিত সম্পদ জেলা প্রশাসন, উপ-সহকারী পরিচালক ফায়ার সার্ভিস শেরপুরের নামে অধিগ্রহন করে। গত ২০০৬ সালের ২৩ নভেম্বর নকলা শহরের বাদাগৈড় মোড়ে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মান কাজের টেন্ডার আহবান করে শেরপুর জেলা গণপূর্ত প্রকৌশল(পিডবিøওডি) । কাজের প্রাক্কলন ধরা হয় ৫৯ লাখ ৬৮ হাজার ১৩৯ টাকা। ঠিকাদার নিযুক্ত হন মেসার্স আমির হোসেন লিঃ। ষ্টেশনের নির্মাণ কাজ চলা অবস্থায় ২০০৯ সালে ওই জমির মালিকানা দাবী করে জনৈক কেশব নাথ প্রসাদ ও দুধনাথ প্রসাদ সরকারকে বিবাদী করে আদালতে মামলা করেন। ২০১০ সালে মামলার ডিগ্রী পান কেশব পান নাথ প্রসাদ ও দুধনাথ প্রসাদ। ওই বছরেই সরকার আপীল করলে সরকারের পক্ষে রায় আসে। পরে ২০১৬ সালে কেশব নাথ প্রসাদ ও দুধনাথ আবারও উচ্চ আদালতে আপীল করেন এবং আদালত স্থিতি অবস্থা জারি করেন। মামলার কারনে ঠিকাদার ২০০৯ সাল থেকে আর কাজের আর অগ্রগতি করেনি। গণপূর্তের নোট ফাইলে লিখা আছে সংশ্লিষ্ঠ ঠিকাদার কাজটি সম্পাদন করতে ব্যর্থ হওয়ায় চুক্তি বাতিল করা হয় এবং ঠিকাদার কাজ সম্পন্ন করেছেন শতকরা ৬০ ভাগ। বন্ধ হওয়া কাজটি সম্পাদন করতে দ্বিতীয় বারের মত গত ২০১০ সালের ২৫ আগষ্ঠ, ৩৫ লাখ ৭৪ হাজার ৭২৪ টাকা প্রাক্কলন ধরে আবারও টেন্ডার আহবান করা হয়। ওই মামলার কারণে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ করতে সম্মত হয়নি। তবে ২০১৮ সালে শেরপুর পিডবিøওডি ৭৪ লক্ষ ১৯ হাজার ৪০ টাকা প্রাক্কলন দেখিয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অনুমোদন দিতে আরেকটি প্রতিবেদন জমা দেয় কিন্তু নিষেধাজ্ঞার করনে কিছ্ইু হয়নি। এদিকে প্রথম ঠিকাদারের করে দেওয়া নির্মানকাজ প্রায় নষ্ট হয়ে গেছে। নকলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের নামে মোট ১০জন সরকারী কর্মচারী রয়েছেন। এসব কর্মচারী কাজ করছে বিভিন্ন উপজেলায়। ওই স্টেশনের সরকারী গাড়ি ও যন্ত্রপাতি বর্তমানে শেরপুর জেলা সদরে পড়ে আছে। প্রশ্ন উঠেছে কাজের ৬০% সম্পাদন হলেও বিল প্রদান করা হয়েছে ৪৫ লাখ ১২ হাজার টাকা অর্থাৎ ৭৫.৪০%। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের নগদ জামানত বাবদ গণপূর্তের কাছে নগদ জমা ৫ লাখ ৯৬ হাজার টাকাও ঠিকাদারকে দিয়ে দেওয়া হয়েছে।
নকলা উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) কাওসার আহাম্মেদ জানিয়েছেন, কাজটির গুরুত্ব বিবেচনায় মঙ্গলবার মামলার বাদী,স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সকল সংশ্লিষ্ঠদের নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে সুহার্দ্য পূর্ণ বৈঠক হয়েছে। মামলার বাদী কয়েকদিন সময় নিয়েছে। আশা করি একটা সমাধানে পৌছা যাবে। তবে সুরাহা হতে হবে আইনের মধ্যে।
শেরপুর জেলা গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, কাজটি সম্পন্ন করতে চেষ্ঠা চলছে। আর কিভাবে কত টাকা বিল পূর্বের কর্মকর্তা দিয়েছেন তা বিস্তারিত ফাইল দেখে বলতে হবে। এর বেশী তিনি বলতে রাজি হননি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
কপিরাইট © 2020 somoyerahoban.com একটি স্বপ্ন মিডিয়া সেন্টার প্রতিষ্ঠান।