1. admin@somoyerahoban.com : somoyerahoban :
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৫৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
ঝিনাইগাতীতে সুকুমার হলেন শুকুর আলী কেশবপুরে বজ্রপাত প্রতিরোধে তালের চারা রোপণ কর্মসূচীর উদ্বোধন করলেন এমপি শাহীন চাকলাদার নালিতাবাড়ীতে সনাকের উদ্যোগে ৪০০ তালবীজ রোপন ঝিনাইগাতীতে ইউনিয়ন পরিষদের রাস্তা বন্ধ করে বিল্ডং নির্মানের অভিযোগের তদন্ত শুরু কেশবপুরে যুব সমাজের উদ্যোগে বজ্রপাত প্রতিরোধে তালের বীজ রোপন শেরপুরে মুজিব শতবর্ষ জেলা দাবা লীগ উদ্বোধন : প্রথমদিন দাবা ক্লাবের পূর্ণ পয়েন্ট লাভ। নালিতাবাড়ীতে মায়ের সাথে অভিমান করে শিশুর আত্মহত্যা শ্রীবরদীতে মাদকবিরোধী অভিযানে হেরোইনসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার সোমেশ্বরী নদী থেকে অবৈধভাবে বালু লুটপাট চলছেই,পাড় ভেঙ্গে হুম‌কি‌তে বসতবাড়ি নালিতাবাড়ীতে আখ চাষে লাভ,বাড়ছে আবাদ

কেশবপুরে এক ডাক্তারের বাড়ীর কাজের মহিলার অবৈধ গর্ভপাত এলাকায় চাঞ্চল্য

মীর আজিজ হাসান (যশোর)কেশবপুর প্রতিনিধি।
  • Update Time : শুক্রবার, ৫ মার্চ, ২০২১
  • ১৪৪ Time View

অবিশ্বাস্য হলেও সত্য কেশবপুরে সরকারী হাসপাতালের ডাক্তারের বাড়ীর কাজের মহিলা পারভীনার অবৈধ গর্ভপাতের ফসলের পিতৃ পরিচয় নিয়ে এলাকায় নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে। ঘৃণীত এই ঘটনাটি ঘটেছে কেশবপুর উপজেলার পাঁজিয়া বাজারস্থ নিকারী পাড়ায়।

বৃহস্পতিবার উপজেলার পাঁজিয়া বাজারস্থ নিকারীপাড়ায় সরেজমিনে পারভীনার বাড়ীতে উপস্থিত হয়ে অবৈধ গর্ভপাতের বিষয় জানতে চাইলে পারভীনার জা নেহারজান এই প্রতিনিধিকে জানান, প্রায় ১৫/১৬ বছর আগে পারভীনার স্বামী কুবাদ আলী ওরফে মোকিম মারা যায়। এরপর সে আর বিয়ে করেনি। পারভীনার একমাত্র ছেলে যশোরে একটি গ্যারেজে কাজ করে। পাঁজিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডাঃ এম এম আফসার আলীর বাসায় ঝি এর কাজ করে পারভিনা। প্রতিদিন বোরকা পরে বাড়ী থেকে বের হয়ে ঝি এর কাজ করে রাতে বাড়ীতে ফেরে সে। বাকী সময় টুকু সে বাড়ীতে একাই কাটিয়ে দিত। হঠাৎ করে বুধবার দুপুরে পারভীনার গর্ভপাতের ঘটনা জানতে পেরে ছুটে যায় হাসপাতালে। সম্ভবত আফসার ডাক্তারের বাড়ীতে কাজ করার সময় বেদনা শুরু হলে সে পার্শ্ববতি নজরুল খাঁর বাড়ীর সন্নিকটে আমবাগানে গোপনে নিজেই নিজের গর্ভপাত ঘটিয়ে ঐ নবজাতককে জীবন্ত মারতে একটি ব্যাগের মধ্যে ভরে ফেলে দেয়। পারভীনাকে একা বাগানে যেতে দেখে সন্দেহ হয় পাশের এক মহিলার। এরপর সেই মহিলা ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখতে পায় একটি ব্যাগ আর ব্যাগের মধ্যে দেখতে পায় একটি নবযাতক পুত্র সন্তান। নবজাতকটি জীবত থাকায় এলাকাবাসী উদ্ধার করে কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। ঐদিন রাতে নবজাতকসহ মাকে কেশবপুর হাসপাতাল থেকে যশোর সদর হাসপাতালে স্থানন্তর করা হয়েছে। সেখানে বাচ্ছা ও মা উভয় সুস্থ আছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে প্রায় ১৫ বছর ধরে যে মহিলা বিধবা জীবন যাপন করছে, এমনকি কারো সাথে তার বিয়ে পর্যন্ত হয়নি। একজন বিধবার গর্ভে সন্তান এলো কিভাবে? আবার অবৈধ গর্ভপাতের পর ঐ নবজাতককে মেরে ফেলার চেষ্ঠা কেন? তার গর্ভের সন্তানের কথা পরিবারের লোকজন, এমনকি সে ভোরবেলা থেকে রাত পর্যন্ত যে ডাক্তারের বাড়ীতে ঝি এর কাজ করে তারাও জানে না তার গর্ভের খবর। তাহলে তার গর্ভের বাচ্চার আসল পরিচয় কি? কি তার পিতৃপরিচয়-এইসব নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে এলাকাবাসির মনে। এক পর্যায়ে পুলিশের প্রশ্নের জবাবে পাভীনার মুখ থেকে বেরিয়ে এসেছে ভাসুর ইয়াকুবের নাম। তবে এটি মানতে নারাজ প্রতিবেশীরা। এ ব্যাপারে ডাক্তার আফসার আলী এই প্রতিনিধিকে বলেন, পারভীনা তার বাড়ীর কাজের মেয়ে। সে সকালে আসে আর রাতে বাড়ী যায়। তার পেটের বাচ্চার বিষয় তিনিসহ তার বাড়ীর কেউ জানেন না।

এ ব্যাপারে কেশবপুর থানার উপ-পরিদর্শক ঐ অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত এস আই তাপস জানান, এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোন অভিযোগ হয়নি। সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরলে এ বিসয়ে তদন্ত করা হবে। তবে তিনি জানান, পারভীনা স্বিকার করেছে তার ভাসুরের সাথে গোপনে বিয়ে হয়েছে।।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
কপিরাইট © 2020 somoyerahoban.com একটি স্বপ্ন মিডিয়া সেন্টার প্রতিষ্ঠান।