1. admin@somoyerahoban.com : somoyerahoban :
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:২৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
নালিতাবাড়ীতে মার্সেল ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন হৃদরোগের আশঙ্কা আছে কি না, বৃদ্ধাঙ্গুলি দিয়ে মুহূর্তেই পরীক্ষা করবেন যেভাবে ঝিনাইগাতীতে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধ নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন নালিতাবাড়ীতে বিদ্যুতের লোড সেডিংয়ে অতিষ্ট সাধারণ মানুষ ঝিনাইগাতীতে নিখোঁজের ১৮দিনেও মাদ্রাসা ছাত্রের সন্ধান মেলেনি শ্রীবরদীতে তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ঝিনাইগাতীতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে কৃষক হত্যার চেষ্টা ঝিনাইগাতীতে পাখি শিকারীকে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা ঝিনাইগাতীতে ৭ দিনেও উদ্ধার হয়নি অপহৃত স্কুলছাত্রী ঝিনাইগাতীতে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মুক্তিযোদ্ধার দাফন

কেশবপুরের মেয়ে শারমিন আক্তার মিতার সাফল্য

মীর আজিজ হাসান (যশোর)কেশবপুর প্রতিনিধি।
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১
  • ১৫৫ Time View

একজন উদ্যোক্তাকে উদ্যোক্তা হিসেবে দেখা উচিৎ, নারী উদ্যোক্তা হিসেবে নয়। কিন্তু এই মুহর্তে আমাদের দেশে নারী তথা নারী উদ্যোক্তা ও নারী পেশাজীবিরা পুরূষদের মতো নির্বিঘ্নে কাজ করার সুযোগ পাননা। এটা সমাজের সমস্যা হোক, দেশের সমস্যা হোক- এটা একটা সমস্যা। নারীরা এমন কিছু সমস্যা মোকাবিলা করেন যেটা একই সমাজের একজন পুরুষকে মোকাবেলা করতে হয়না।

তেমন একজন নারী উদ্যোক্তার সফলতার গল্প এটি। তিনি হলেন একজন সংগ্রামী সফল নারী উদ্যোক্তা, আরিয়ানা এগ্রো এন্ড ফুড প্রডাক্টস লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শারমিন আক্তার মিতা। তিনি অনেকের কাছে অপরিচিত হলেও তার ব্যাপক পরিচিতি আছে সমাজের অবহেলিত অসহায় বেকার তরুন, তরুনী, নারীদের মাঝে সারা বাংলাদেশে আজ তার প্রতিষ্ঠানে কাজ করছে ২০০ এর বেশি কর্মী।
সফল নারী উদ্যোক্তা মিতা জানিয়েছেন, এই সফলতার পেছনে রয়েছে শ্রম ও ত্যাগের অনেক গল্প।

সফল নারী উদ্যোক্তা শারমিন আক্তার মিতা যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার কর্ন্দপপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। সেখানেই তার বেড়ে ওঠা এবং মাধ্যমিক পর্যন্ত বড়েঙ্গা সম্মেলনী বিদ্যাপীঠে পড়াশোনা করেছেন এরপর কেশবপুর থানার শহীদ ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মাসুদ মেমোরিয়াল কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করে তারপর ডিগ্রি পড়া অবস্থাতেই ভালবসার মানুষের সাথে বিবাহ বন্ধনে অবাধ্য হন। তারপর থেকে শুরু হয় তার জীবনের প্রতিকুলতা, নিজের ইচ্ছেতে বিয়ে করায় সমাজ ও শশুরবাড়ি তে বিভিন্ন সময় হতে হয়েছে অপমানিত অনেক কষ্ট সহ্য করে তার দিন কাটতে থাকে অভাব অনাটনে। একটি সময় কষ্ট সহ্য করতে না পেরে মিতা এবং তার একমাএ মেয়ে ও স্বামীকে নিয়ে ঢাকা পাড়ি জমান সেখানে গিয়ে তার স্বামীর সাহস ও সহোযোগিতায় শুরু হয় সল্পপুজি দিয়ে একটি ইলেকট্রনিকস ব্যাবসা। জীবনের ভাগ্য পরিবর্তনের কাজে প্রতিটা মুহুর্তে শ্রম ও মেধা দিয়ে কাজ করে আসছেন শারমিন আক্তার মিতা।

ইলেকট্রনিকস ব্যাবসা করার এক বছর পরেই নিজের উদ্দ্যোগে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে গড়ে তোলেন আরিয়ানা এগ্রো এন্ড ফুড প্রডাক্টস লিমিটেড নামে একটি কোম্পানি। আরিয়ানা এগ্রো এন্ড ফুড প্রডাক্টস লিমিটেড বর্তমান উৎপাদিত ও ট্রেডিং পন্য বিস্কুট, চানাচুর, চাইল,মসলা সহ মোট ৭৮ টি পন্য বাজারজাত করছে। আরিয়ানা এগ্রো এন্ড ফুড প্রডাক্টস লিমিটেড এর পন্য বিক্রয় প্রতিনিধি, ম্যানেজার ও ডিসট্রিবিউটর এর মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ছে বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তে ভোক্তাদের কাছে, পৌঁছে যাচ্ছে আরিয়ানার মানসম্মত পন্য।

নিজস্ব আগ্রহ ও অভিজ্ঞতা ব্যবহার করে একটু একটু করে গড়ে তুলেছেন আরিয়ানা এগ্রো এন্ড ফুড প্রডাক্টস লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটি অর্জন করেছে আস্থা ও ভালোবাসা। শুরুটা স্বাভাবিকভাবে মসৃণ না হলেও তিন বছরে তাঁর প্রতিষ্ঠান পেরিয়েছে অনেক পথ। আরিয়ানা এগ্রো এন্ড ফুড প্রডাক্টস লিমিটেড এর পন্য বাজারজাত হচ্ছে বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা ও থানা পর্যায় শারমিন আক্তার মিতা জানিয়েছেন করোনা পরিস্থিতি একটু সাভাবিক হলে তার কোম্পানির উৎপাদিত খাদ্য পন্য দেশের বাইরে রপ্তানি করবেন।

স্বনামধন্য আরিয়ানা এগ্রো এন্ড ফুড প্রডাক্টস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শারমিন আক্তার মিতা দেশকে ভালোবাসতে চান এবং দেশের গরীব-দু:খী মানুষের জন্য কিছু করতে চান। তিনি জানিয়েছেন সফল উদ্যোক্তা হওয়ার পেছনে সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছেন তাঁর স্বামী। সব সময় পাশে থেকে সাহস জুগিয়েছেন। তার সহযোগিতায় আজ তিনি এই জায়গায় আসতে পেরেছেন।

নারী উদ্যোক্তার পাশাপাশি তিনি একজন দায়িত্বশীল মা, কঠোর অধ্যবসায়ের মধ্য দিয়ে নিজেকে গড়ে তুলেছেন একজন সফল উদ্দ্যোক্তা হিসাবে।

মন খারাপ হলে শারমিন আক্তার মিতা ছুটে যান খুলনার আশেপাশে কোন বৃদ্ধাশ্রমে এতিম খানাতে সেখানে সাধ্যমত সেবা শুশ্রূষা করার চেষ্টা করেন। অবসরে ভ্রমন-পিপাসু শারমিন আক্তার মিতা পছন্দ করে ভ্রমন করতে, তিনি দেশের বিভিন্ন যায়গায় ভ্রমন করেছেন পাশাপাশি ভ্রমন করতে চান পূথিবীর একাধিক দেশ।

শারমিন আক্তার মিতার উদ্যোগ গুলোকে সমাজের অনেক মানুষ মেনে নেইনি শুরুতে তাঁর এমনও অভিজ্ঞতা হয়েছে, অনেকে তাঁর ব্যবসাটি নিয়ে হাসি ঠাট্টা করেছে উপহাস করেছে সমলচনা করেছে ন্যায্য স্বীকৃতিটিও দেয়নি। কিন্তু তিনি বিশ্বাস করেন, যেকোনো সনাতনী পেশাজীবীর চেয়ে একজন উদ্যোক্তাকে তাঁর ব্যবসায়- ভাবনা, শ্রম ও সময় কোনো অংশেই কম দিলে হয় না।

নতুন নারী, তরুন,তরুণী উদ্যোক্তাদের জন্য তার পরামর্শ- স্বাবলম্বী হয়ে বেঁচে থাকার স্বার্থকতাটাই আলাদা। তাই বলবো, একজন সফল নারী, তরুন,তরুণী উদ্যোক্তা হলে আপনাকে অবশ্যই ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রতিবন্ধকতা থাকবেই, তবে ইচ্ছা থাকলে তা ওভারকাম করা সম্ভব। কে কি বললো সেটা তে কান না দিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে হবে অনেকেই অনেক কথা বলবে কিন্তু কোন কথাতে কান না দিয়ে জীবনের লক্ষ্য নিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। আমি একা বড় হতে চাই না, আশপাশের তরুন তরুণীদের ও সফল হতে দেখতে চাই।

সফল নারী উদ্যোক্তা শারমিন আক্তার মিতা বলেন জীবনে অনেক পেয়েছি এবার কিছু দিতে চাই আমি সমাজের অবহেলিত মানুষ বিশেষ করে নারীরা যারা আমাদের সমাজে অনেক ক্ষেত্রে অসহায় তাদেরকে নিয়ে কাজ করতে চাই, তাদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে আত্বর্নিভরশীল করে গড়ে তুলতে চাই। দেশের বেকারত্ব সমস্যা সমাধান এর জন্য কাজ করে যেতে চাই প্রতিটা সময় দেশ ও মানুষের উন্নয়নে কাজ করে যেতে চাই আমার প্রতিষ্ঠান আরিয়ানা এগ্রো এন্ড ফুড প্রডাক্টস লিমিটেড শুধু একটি প্রতিষ্ঠান নয় এটা একটি পরিবার।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
কপিরাইট © 2020 somoyerahoban.com একটি স্বপ্ন মিডিয়া সেন্টার প্রতিষ্ঠান।